টেকনাফে রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার, আটক ৩

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ : টেকনাফের উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়া থেকে গলায় ফাঁস লাগানো এক রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করেছে বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত রোহিঙ্গার ১ম স্ত্রী বাদী হয়ে ৩ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ উক্ত মামলায় অভিযুক্ত ২য় স্ত্রী, ২য় স্ত্রীর বড় ভাই ও তার স্ত্রীকে আটক করেছে। ময়না তদন্তের পর লাশ ১ জুলাই রাত ১০টায় দাফন করা হয়েছে। বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের আইসি সাব-ইন্সপেক্টর কাঞ্চন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। টেকনাফের উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়া ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার ফরিদুল্লাহ জানান, অবৈধভাবে অনুপ্রবেশকারী মিয়ানমার নাগরিক রোহিঙ্গা মৃত বাচা মিয়ার পুত্র আবদুল্লাহ (৪৭) হাজামপাড়ার ডেইলপাড়ায় সাবেক মেম্বার নুরুল ইসলামের বাগানে ভাড়া বাসায় বসবাস করত। তার ২ স্ত্রী। প্রায় দুই সপ্তাহ পরে আবদুল্লাহ বাসায় আসলে পারিবারিক কলহের জের ধরে ৩০ জুন রাতে তাদের মধ্যে ঝগড়া ও মারামারি হয়। রবিবার সকালে স্থানীয় লোকজন বাসার নিকটে একাশি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় আবদুল্লাহর লাশ দেখে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করেন।
এ ঘটনায় আবদুল্লাহর ১ম স্ত্রী মরিয়ম খাতুন (৪১) বাদী হয়ে ২য় স্ত্রী নুর জন্নাত (৩৩), ২য় স্ত্রীর বড় ভাই সবিদুল হক (৩৯) ও তার স্ত্রী সুরত জামাল বেগমকে (৩০) অভিযুক্ত করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ উক্ত মামলায় অভিযুক্ত ৩জনকে আটক করে। টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রনজিত কুমার বড়–য়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ‘এটি হত্যা না আতহত্যা তা ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে না আসা পর্যন্ত নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেনা। আটককৃতদের কোর্টে চালান দেয়া হবে’।

মতামত দিন