খুরুশকুলে নির্বিচারে কাটা হচ্ছে পাহাড়; হুমকির মুখে বন ও পরিবেশ

স্বপন কান্তি দে: বেশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেও কক্সবাজারে চলছে যত্রতত্র নির্বিচারে পাহাড় কর্তন। সম্প্রতি খুরুশকুলে নির্বিচারে পাহাড় কর্তনে পরিবেশের ভয়াবহ বির্পযয়ের আশঙ্কা করা হচ্ছে। সরকারি আইনকে অমান্য করে সংঘবদ্ধ মাটি খেকো চক্র পাহাড়ের মাটি অবৈধ ভাবে কেটে ট্রাক ডাম্পার ও পিকআপ যোগে বিভিন্ন জায়গায় সরবরাহ করছে। বন বিভাগের পাহাড় কর্তনের ফলে পরিবেশের মারাত্মক বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন পরিবেশবাদী সংগঠন।

খোঁজখবর নিয়ে জানা যায় বর্তমানে উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় ব্যাপকহারে মাটি ভরাটের কাজ চলছে। দালান, বাড়িঘর ও দোকান মার্কেট নির্মাণ করার জন্য জায়গা ভরাট করতে হাজার হাজার ফুট মাটি প্রয়োজন। কয়েকটি সিন্ডিকেট সরকারি পাহাড় কেটে ভরাট কাজে মাটি যোগান দিচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে সরকারি বনভূমি হতে পাহাড় কর্তন ও মাটি সরবরাহ নিষিদ্ধ থাকলেও স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় সঙ্ঘবদ্ধ সিন্ডিকেট সদস্যরা আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে একের পর এক পাহাড় কর্তন করেই যাচ্ছে।
২০১০ সালের পরিবেশ আইনের মাধ্যমে পাহাড় কাটাকে একটি অপরাধ হিসাবে বিবেচনা করা হয়েছে। এই আইনের যথাযথ বাস্তবায়ন প্রয়োজন।
স্থানীয় সচেতন নাগরিক সমাজ, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও সরকারি পাহাড় গুলো সুরক্ষা করতে অবিলম্বে পাহাড় কর্তন এবং মাটি পাচার বন্ধের জন্য বিভাগীয় বন কর্মকর্তার নিকট দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*