কোচিং সেন্টারের পরিচালক তানভীর ছুরিকাঘাতে নিহত

জসিম সিদ্দিকী: কক্সবাজারের প্রতিভা কক্স কোচিং সেন্টারের পরিচালক তানভীর সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছে। ২৯ জুন শুক্রবার দিনদুপুরে কক্সবাজার শহরে এ ঘটনা ঘটে। কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচনী প্রচারনার বিরোধ নিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।

এলাকাবাসি ও প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, একটি তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে ২৯ জুন বাদ জুমা কক্সবাজার পি টি স্কুল সংলগ্ন এলাকায় একদল সন্ত্রাসী তানভীর হোছাইনকে উপূর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে। নির্মমভাবে আহত তানভীর মাটিতে পড়ে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয় লোকজন তানভীরকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষনা করে। সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে কক্সবাজারের মেধাবী মুখ তানভীরের মৃত্যু হয় বলে জানা গেছে। নিহত তানভীর পি টি স্কুল এলাকার দক্ষিণ রুমালিরছড়ার সোলাইমানের কনিষ্ট পুত্র। নিহত তানভীর কক্সবাজার সরকারী কলেজ থেকে গণিত বিষয়ে অনার্স শেষ করে বর্তমানে চট্টগ্রাম সরকারী কলেজে গণিত বিষয়ে নিয়ে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত। ইতোমধ্যে তানভীর কক্সবাজারে প্রতিভা কক্স নামে একটি কোচিং সেন্টার প্রতিষ্টা করেন। এ কোচিং সেন্টারের তিনি নিজেই পরিচালক।

নিহত তানভীরের পরিবার সূত্রে জানা যায়, কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামশেদের সাথে তানভীরের বড় ভাই নির্বাচনী প্রচারণায় গেলে এ বিষয় নিয়ে তানভীরের বড় ভাইয়ের সাথে কক্সবাজারের দক্ষিণ রুমালিরছড়ার বশরের পুত্র আবছার গ্রুপের প্রধান আবছারের সাথে বাক-বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে ধস্তা-ধস্তি হলে এ সময় তানভীর এসে উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার অনুরোধ করে। এমনি এক মূহুর্তে বশরের পূত্র আবছার বাহীনির প্রধান আবছার তানভীরকে উপুর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তানভীরের মৃত্যু হয়। কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মেধাবী মুখ নিহত তানভীরকে দেখতে মানুষের ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। এ সময় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দীন খন্দকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তানভীরের মৃত দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান ওসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*