কক্সবাজারে পাকিস্তানের কাছে ৩০ রানে অলআউট বাংলাদেশ

তারেকুল ইসলাম, কক্সবাজার:চলতি বছরে এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ নারী দল পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে যেনো মুখ থুবড়ে পড়লো। বৃষ্টি ও ভেজা আউটফিল্ডজনিত সমস্যার কারণে ১৪ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে পাকিস্তান আগে ব্যাট করে দাঁড় করায় ৮৮ রানের সংগ্রহ। জবাবে ১২.৫ ওভারে মাত্র ৩০ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। বরণ করেছে ৫৮ রানের পরাজয়, অল্পের জন্য এড়িয়েছে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসের সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার লজ্জা। চলতি বছরের আগস্টে নামিবিয়া নারী দলের বিপক্ষে ২৫ রানে অলআউট হয়েছে মোজাম্বিকের নারী ক্রিকেট দল। নারী ক্রিকেটের ইতিহাসে এটিই দলীয় সর্বনিম্ন সংগ্রহ। পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটিতে ২৩ রানে নবম উইকেট হারিয়ে এ রেকর্ড নিজেদের করে নেয়ার শঙ্কায় পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। অলরাউন্ডার রুমানা আহমেদের অপরাজিত ৯ রানের ইনিংস এড়ানো গিয়েছে এ লজ্জা। তবে ৩০ রানে অলআউট হয়ে ইতিহাসের তৃতীয় সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড ঠিকই নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। ৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নামা বাংলাদেশ শুরু থেকেই হারাতে থাকে উইকেট, কেউই ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্কের সংগ্রহ। ফলে হতাশার পরাজয়েই শেষ হয় ম্যাচ। এর আগে কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচে টসে জিতে আগে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। নিজেদের ১৪ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৮৮ রান করতে সক্ষম হয় পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দল। নিজেদের ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে পাকিস্তান তাদের প্রথম উইকেট হারালেও দ্বিতীয় উইকেটে সামলে নেন নাহিদা খান ও জাভেরিয়া খান। দুজন মিলে দ্বিতীয় উইকেটে মাত্র ২৮ বলে যোগ করেন ৪১ রান। জাভেরিয়ার ব্যাট থেকে আসে ইনিংস সর্বোচ্চ ২৫ রান। এছাড়া নাহিদা ১৮, মুনিবা আলী ১০ ও আলিয়া রাজ ১০ রান করে অপরাজিত থাকলে ১৪ ওভারে ৮৮ রানে থামে পাকিস্তানের ইনিংস। বাংলাদেশের পক্ষে দুই উইকেট নেন নাহিদা আক্তার। এছাড়া জাহানারা আলম ও লতা মন্ডল নেন একটি করে উইকেট। এ পরাজয়ে ৪ ম্যাচের সিরিজে ১-০তে পিছিয়ে গেল বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল। সিরিজের শেষ ২ ম্যাচ মাঠে গড়াবে ৫ ও ৬ অক্টোবর। ৮ অক্টোবর একমাত্র ওয়ানডে ম্যাচের মধ্য দিয়ে শেষ হবে পাকিস্তান নারী দলের বাংলাদেশ সফর।

মতামত দিন